সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে মুজিব সেনাকে বানানো হচ্ছে জিয়ার সৈনিক!

সোমবার, ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | ৭:৪৩ অপরাহ্ণ | 452 বার

সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে মুজিব সেনাকে বানানো হচ্ছে জিয়ার সৈনিক!

শেখ মোর্শেদ :সিলেটের কোম্পানীগঞ্জের দক্ষিণ রণিখাই ইউনিয়ন যুবলীগের কমিটিকে সামনে রেখে সম্ভাব্য প্রার্থীদেরকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শুরু হয়েছে নানা অপপ্রচার। একটি মহল ঈর্ষান্বিত হয়ে ও সংগঠনকে নেতৃত ¡শুন্য করতে পূর্বপরিকল্পিত ষড়যন্ত্র শুরু করেছে।

যুবলীগের ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতাকর্মীকে দলের কাছে কুলষিত করতে এবং আগামীর কমিটিতে পদ থেকে বঞ্চিত রাখতে নুতন করে ঐ ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামীলীগ ও যুবলীগ’সহ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। তবে বিশেষ করে যে ছবিটি দিয়ে মিথ্যাচার করা হচ্ছে, তা দীর্ঘ ৭বছরের পূর্বে স্থানীয় একটি মাদ্রাসার বৈঠক শেষে ফেরার পথে বিএনপির কয়েকজন লোক হঠাৎ করে এই ছবিটি ক্যামেরায় বন্ধি করে।

কিন্তু তাদের প্রতারণামুলক উদ্দেশ্যের কথা তখন কারো নজরে আসেনি। ছবিতে আওয়ামীলীগ ও জাতীয় পার্টির কয়েকজন নেতা রয়েছেন। কিন্তু আওয়ামীলীগ ও জাতীয় পার্টির সেই সকল নেতাদেরকে ছবিতে দেখার পরও একক ভাবে দক্ষিণ রণিখাই ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা জমির হোসেনের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করাটা সম্পূর্ণ উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও রাজনৈতিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার শামিল। আওয়ামীলীগ ও যুবলীগ’সহ অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা জমির হোসেনের বিরুদ্ধে করা সকল অপপ্রচারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

আওয়ামীলীগ ও যুবলীগ’সহ অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা জানিয়েছেন, ২০১২ সালে দক্ষিণ রণিখাই ইউনিয়নের হায়দরী বাজার মাদানিয়া মাদ্রাসার ১ম বার্ষিক ইসলামী সম্মেলনের প্রস্তুতি কমিটির বৈঠক ছিলো মাদ্রাসা অফিসে। বৈঠক শেষে বাড়ি ফেরার পথে বিএনপি নেতা আজিজুর রহমান আজিজ ও কামাল নামের দুই ব্যক্তি মহানগর বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন আহমদ মাসুকের নিঃশর্ত মুক্তি চাই লিখা ব্যানার ঝুলিয়ে একটি ছবি তুলে। তবে সেই ব্যানারে উদ্যোক্তা কোন সংগঠনের নাম নেই। উল্লেখ্য যে, আজিজ ও কামাল মহানগর বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন আহমদ মাসুকের তালতো ভাই। কিন্তু দ্বীনি একটি প্রতিষ্ঠানের ওয়াজ মাহফিলের প্রস্তুতি সভায় এসে ফেরার পথে ছবিটি তুলে কেউ প্রতারণা করবে, তা কখনো বুঝে ওঠেননি উপস্থিত আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীসহ মাদ্রাসার মুহতামিম।

অপপ্রচার করা সেই ছবিটির ব্যাপারে উপস্থিত মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা আইন উদ্দিন ও ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি সামছুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক টিলাই মিয়া, সদস্য আব্দুল হামিদ, হুসন আলী, সেলিম মিয়া, জৈন উদ্দিন, ৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি  সিরাজ উদ্দিন, সদস্য আব্দুস সালাম ও রাশিদ আলী, ৫ নং ওয়ার্ড সদস্য সিরাজ উদ্দিন, ৮নং ওয়ার্ড জাতীয় পার্টির নেতা মছব্বির আলী’সহ এলাকার গণ্যমান্য লোকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সেই ছবিটির নেপথ্যের ঘটনা ও সত্যতা বের হয়ে আসবে।

এ ব্যাপারে হায়দরী বাজার মাদানিয়া মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা আইন উদ্দিন বলেন, সেই দিন বিএনপির কোন নির্ধারিত প্রতিবাদ সভা বা মিছিল ছিলো না। বিএনপি নেতা হুমায়ুন আহমদ মাসুকের তালতো ভাই কামাল আমাদের সামনে ব্যানারটি ঝুলিয়ে দিয়ে ছবি তুলে। আমরা ঐ সময় বিষয়টি বুঝতে পারিনি।

এ বিষয়ে এলাকাবাসি বলেন, দুঃখজনক হলেও সত্য, দীর্ঘ সাতটি বছর কেউ কোন প্রতিবাদ বা বিবৃতি না দিয়ে হঠাৎ করে সেই পুরনো ছবিটি দিয়ে যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার চালানোর রহস্য কি? এমন প্রশ্ন অনেকেরই।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, সম্প্রতি কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার সকল ইউনিয়ন যুবলীগের কর্মী সম্মেলন সম্পন্ন হয়েছে। আগামী কয়েক দিনের মধ্যে উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক কমিটির নেতৃবৃন্দ সকল ইউনিয়ন কমিটি ঘোষণা করবেন। আর তাতে দক্ষিণ রণিখাই ইউনিয়ন যুবলীগের কমিটিতে সভাপতি প্রার্থী হয়েছেন জমির হোসেন। তাই রাজনৈতিক গ্রæপিং ও প্রতিহিংসার শিকার হচ্ছেন জমির হোসেন। যাতে জমিরকে সভাপতি পদ থেকে বঞ্চিত রাখা যায়, সেজন্য শুরু হয়েছে তার বিরুদ্ধে যোগাযোগ মাধ্যমে মিথ্যাচার ও নানা অপপ্রচার।

এ ব্যাপারে দক্ষিণ রণিখাই ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি বলেন, যুবলীগ নেতা জমির হোসেনের বাবা মৃত ইলিয়াস আলী আওয়ামী রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন। জমিরও তার বাবার মতো আওয়ামী রাজনীতির সাথে জড়িত। বিএনপি কিংবা অন্য দলের রাজনীতি করেছে বলে আমার জানা নেই।
দক্ষিণ রণিখাই ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নরেশ চন্দ্র দাস বলেন, যুবলীগ নেতা জমির হোসেন আওয়ামী রাজনীতির সাথে জড়িত। ২০০৮ ও ২০১৪ সালের সংসদ নির্বাচনে সে নিজ অর্থে ব্যানার, পোষ্টার ও লিফলেট বিতরণ করেছে। ফলে বিএনপির রাজনীতি করার প্রশ্নই ওঠে না।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য এডভোকেট হাবিবুর রহমান ভুট্রু বলেন, বর্তমান রাজনীতিতে পছন্দের লোক না হলেই কাউয়া ও হাইব্রিড বলা হয় নেতাকর্মীকে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নষ্ট করা হয় তাদের। গত দুটি সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য ইমরান আহমদের পক্ষে ও নৌকা মার্কার সমর্থনে জমিরকে পোষ্টার বিলি ও প্রচারণা করতে দেখেছি। তার পুরো পরিবার আওয়ামী রাজনীতির সাথে জড়িত। নিঃসন্দেহে জমির আওয়ামী রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত। জমির বর্তমানে প্রতিহিংসার শিকার।

এদিকে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সদস্য সাচ্ছা মিয়া মুস্তাকিম বলেন, যুবলীগ নেতা জমির হোসেন আ’লীগ পরিবারের সন্তান। দলীয় সকল কর্মকান্ডে তার উপস্থিতি ও কর্মদক্ষতা রয়েছে। বিএনপির সাথে তার সম্পৃক্ততা নেই।

এ বিষয়ে দক্ষিণ রণিখাই ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি পদপ্রার্থী জমির হোসেন বলেন, ইউনিয়ন যুবলীগের কমিটিকে সামনে রেখে একটি মহল আমার বিরুদ্ধে নানাভাবে অপপ্রচারে লিপ্ত হয়েছে। ৭ বছর পূর্বের একটি প্রতারণামূলক ছবি দিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আমার বিরুদ্ধে কুৎসা রটাচ্ছে তারা। মূলত আমাকে রাজনৈতিকভাবে ঘায়েল করতেই তাদের এই অপপ্রয়াস। তবে মৃত্যু ব্যতিরেকে আওয়ামী রাজনীতি থেকে আমাকে কেউ বিচ্ছিন্ন করতে পারবেনা। সত্যের জয় হবেই হবে।

সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে মুজিব সেনাকে বানানো হচ্ছে জিয়ার সৈনিক!

২০১১-২০১৬ | বিবিসিজার্নাল.ডটকম'র কোনো সংবাদ বা ছবি অন্য কোথাও প্রকাশ করবেন না

Development by: webnewsdesign.com